২৫ বছর আগের ‘ভুলে’ আজও পুড়ছেন জুহি

24

বিনোদন ডেস্ক : একে একে কেটে গেছে দীর্ঘ ২৫টি বছর। সময়ের জল গড়িয়েছে বহুদূর। তবুও পেছনে ফিরে তাকালে আজও দারুণ আফসোস হয় বলিউডের এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জুহি চাওলার। কিন্তু কী সেই আফসোস? যা দুই যুগ পরেও তাকে পোড়াচ্ছে। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে হাজির হয়ে নায়িকা ফাঁস করেন তার সেই আফসোসের কথা।

জুহি জানান, আমির খানের বিপরীতে ‘রাজা হিন্দুস্তানি’, এবং শাহরুখ খানের বিপরীতে ‘দিল তো পাগল হ্যায়’ছবি দুটিতে অভিনয়ের জন্য প্রথমে তাকেই প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সে সময় জনপ্রিয়তার দাম্ভিকতায় এমন ব্লকবাস্টার দুটি ছবির প্রস্তাব তিনি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন।

সেই সময় নিজের ‘ভুল’ সিদ্ধান্তকেই এই বিখ্যাত দুটি ছবি হাতছাড়া হওয়ার কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন জুহি। অকপট নায়িকা এও স্বীকার করেন, ‘আজ যদি তিনি সুযোগ পেতেন সেই সময়ের জুহি চাওলাকে কোনও একটি উপদেশ দেয়ার, তবে সেই কম বয়সী জুহিকে তিনি নিজের দাম্ভিকতা কমানোর কথাই বলতেন।

এখানেই থেমে থাকেননি অভিনেত্রী। নিজের সমসাময়িক মাধুরী দীক্ষিতকে নিয়েও কথা বলেন তিনি। জুহির মতে, মাধুরী তার থেকে অনেক বড় সব ব্লকবাস্টার দিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন। মাধুরীর নাচের প্রতিভা এবংঅভিব্যক্তি তাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেছিল। প্রসঙ্গতও, ২০১৪ সালে জুহি ও মাধুরী ‘গুলাব গ্যাং’ ছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করেন।

যদিও বলিউডের প্রতিযোগিতা থেকে জুহি এখন অনেক দূরে। অভিনয় থেকে বিরতি নিয়ে বর্তমানে তিনি পরিবেশবিদ হিসেবে কাজ করছেন।

এ প্রসঙ্গে নায়িকা বলেন, ‘লকডাউন অর্থনৈতিক ভাবে মানুষের ক্ষতি করলেও পরিবেশের জন্য খুবই উপকার করেছে। আমি এর আগে এত বিশুদ্ধ বাতাস এবং নিজের বাগানে পাখিদের এত ভিড় দেখিনি। মনে হয়েছিল, পৃথিবীকে হয়তো আমাদের জন্য এ ভাবেই তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু আমরা তার কী অবস্থা করেছি।’

উল্লেখ্য, ২৫ বছর আগে জুহি চাওলা যে ছবি দুটির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন, তার মধ্যে ‘রাজা হিন্দুস্তানি’তে আমির খানের বিপরীতে অভিনয় করেন কারিশমা কাপুর এবং ‘দি তো পাগল হ্যায়’ ছবিতে শাহরুখ খানের বিপরীতে দেখা যায় মাধুরী দীক্ষিতকে। দুটি ছবিই সুপারডুপার হিট হয়। এ কারণেই বোধহয় জুহির আফসোস এখনো শেষ হয়নি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.


Notice: Undefined index: name in /var/www/wp-content/plugins/propellerads-official/includes/class-propeller-ads-anti-adblock.php on line 169