সিনেমা হল এখন খাবার হোটেল

16

বিনোদন ডেস্ক: দেশীয় সিনেমার বর্তমান অবস্থা অনেকটা ‘না মরে বেঁচে থাকা’র মতই। সোনালী সময়ের ঐতিহ্য হারিয়েছে বহু আগেই। এখন এই শিল্পের ধ্বংসাবশেষ দেখার অপেক্ষায় যেন সিনেমাপ্রেমীরা! আর সেই ঈঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রেক্ষাগৃহগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ার মাধ্যমে। হ্যাঁ, কোনোভাবেই টিকিয়ে রাখা যাচ্ছে না জেলা-উপজেলা পর্যায়ের প্রেক্ষাগৃহগুলো। একসময়ে যেসব প্রেক্ষাগৃহ দেশজুড়ে জৌলুস ছড়াত, সেগুলো এখন ধুঁকতে ধুঁকতে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

২০১৯ সালের মাঝামাঝি দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরের সর্বশেষ ও বৃহৎ প্রেক্ষাগৃহ উত্তরা টকিজ বন্ধ হয়ে যায়। এরপর সেটি একেবারের ভেঙে ফেলা হয়। পুরো সিনেমা হল ভাঙলেও মেশিন ঘরটি এখনো অক্ষত রয়েছে। অক্ষত রয়েছে নিচতলার প্রবেশদ্বার ও টিকিট কাউন্টার। সামনের এই অংশটি এখন খাবারের হোটেল হিসেবে চলছে। প্রেক্ষাগৃহের নাম অনুসারে এর নামও দেওয়া হয়েছে উত্তরা হোটেল। মূল মালিকরা নন, একজন নারী জায়গাটি ভাড়া নিয়ে এই রেঁস্তোরা চালাচ্ছেন। একসময় যখন মানুষ টিকিট কেনার জন্য লাইন ধরত, গলগম করত প্রেক্ষাগৃহের-বারান্দা, সেই জায়গাটি কালের পরিবর্তনে এখন খাবার হোটেল।

১৯৮৫ সালে পার্বতীপুর পৌর শহরের নতুন বাজারে যৌথ মালিকানায় নির্মাণ করা হয় উত্তরা টকিজ নামে এই প্রেক্ষাগৃহটি। একসময় এটি সিনেমা প্রদর্শনে জৌলুস ছড়াত শহর থেকে গ্রামগঞ্জ পর্যন্ত। পার্শ্ববর্তী বদরগঞ্জ ও চিরিরবন্দর উপজেলা থেকেও ছবি উপভোগের জন্য দর্শকের সমাগম হত প্রেক্ষাগৃহটিতে।

বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন ও পরিবার-পরিজন নিয়ে প্রেক্ষাগৃহে সিনেমা দেখার কদর ছিল বছর কয়েক আগেও । সাধারণ দর্শকের ভিড় ছিল। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কাটার উৎসব ছিল কাউন্টারের সামনে। অনেকে অগ্রিম টিকিট বুক দিত কাউন্টার থেকে। ঘাম ঝরিয়ে টিকিট কাটা কষ্টসাধ্য হলেও ভালো সিনেমা উপভোগ করে তা পুষিয়ে নিত দর্শক।

উত্তরা টকিজ ছাড়াও পার্বতীপুর ক্যান্টনমেন্টের গ্যারিসন সিনেমা ও সাগর টকিজ নামের দুটি সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে উত্তরাই ছিল পার্বতীপুরের একমাত্র সিনেমা হল। সেটিও বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকার হয়ে পড়েছেন সেখানকার কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীরা।

এই প্রেক্ষাগৃহের কারণেই পার্বতীপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে নতুন বাজার পর্যন্ত যে রাস্তাটি হয়েছিল, সেটির নাম ছিল সিনেমা রোড। জনসমাগম না থাকায় সিনেমা রোডের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, সাধারন দোকানপাটের ক্রয়-বিক্রয়েও ভাটা পড়েছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.


Notice: Undefined index: name in /var/www/wp-content/plugins/propellerads-official/includes/class-propeller-ads-anti-adblock.php on line 169