সুপার মডেল বিষয়টা বিশ্বাস করি না: মৌ

0 52

‘দেখিয়ে দাও অদেখা তোমায়’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চলছে চ্যানেল আই প্রেজেন্টস লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতা। এই প্ল্যাটফর্মকে কাজে লাগিয়ে সুপারস্টার হতে চান প্রতিযোগীরা। রাজধানীর তেজগাঁওয়ের একটি স্টুডিওতে চলছে শুটিং। এ আয়োজনের বিচারক হিসেবে রয়েছেন এই সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও মডেল সাদিয়া ইসলাম মৌ। আয়োজনটির বিভিন্ন দিক নিয়ে বিনোদন সারাবেলার সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি।

বিনোদন সারাবেলা: পরবর্তী প্রজন্মের অসংখ্য মডেলের অনুপ্রেরণা আপনি। তারা আপনাকে অনুসরণ করে হতে চায় আপনার মতো। আপনার কোন অদেখা দিকটি আপনাকে আর সবার কাছ থেকে আইডল করে তুলেছে?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: এখানে যেটা হয় কী, আমি যতটুকু বুঝি-আমার সময়জ্ঞান, সততা, দায়িত্ববোধ আমার কাজের জায়গাটাকে সুন্দর করে তুলেছে। এ কারণে পরের জেনারেশন আমাকে আইডল হিসেবে দেখে, তাদের ভালো লাগার জায়গা থেকেই। যদিও আমি আমার এ জায়গাটিকে নিজেই বিশ্বাস করি না। কিন্তু এটা খুব ভালো লাগে, তারা আমাকে চিনে এবং আমার মতো হতে চায়। কাজের প্রতি ডেডিকেশন, তার সতর্কতাবোধ, তার কমিটমেন্ট। আমার কাছে মনে হয় এই বিষয়গুলো মেনটেইন করলেই আগামী প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা ভালো কিছু করতে পারবে। যে জায়গায় পৌঁছাতে চায়, সে জায়গায় পৌঁছাতে পারবে।

বিনোদন সারাবেলা: একজন সুপার মডেল হয়ে ওঠার পেছনে অদেখা কী গুণের ভূমিকা আছে?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: প্রথম কথা হলো, ‘সুপার মডেল’-এই বিষয়টা আমি বিশ্বাস করি না। আমি একজন মডেল এবং অনেক আগ থেকেই কাজ করি। আমি আমার ডেডিকেশন এবং লয়েলিটি দিয়ে কাজ করার চেষ্টা করেছি। একজন ডিরেক্টর যেভাবে আমাকে কাজ করাতে চেয়েছেন, আমি ঠিক সেভাবেই কাজটি করেছি। আমি যে সময় কাজ করেছি, সে সময় এই মাধ্যমে যে যার ক্ষেত্রে সব চাইতে ভালো, তাদের সঙ্গেই কাজ করেছি। আমি মনে করি, এটা একটা টিম ওয়ার্ক। তারা প্রত্যেকেই যে যার জায়গায় ভালো ছিল। সবার কো-অপারেশনেই আমি আজ এ জায়গায়, যার কারণে আমি সবার প্রতি কৃতজ্ঞ।

বিনোদন সারাবেলা: আপনার ফ্যান-ফলোয়ারদের কেউ জানে না এমন তিনটি অদেখা দিক বলুন…

সাদিয়া ইসলাম মৌ: নতুন করে আর কী বলব, অনেক তো বলেছি। একটা বিষয় কী, যারা আমার সঙ্গে কাজ করেননি, তারা আমার সম্পর্কে কিংবা আমি ঠিক কেমন, তারা তা জানেন না। অনেক কিছুই আছে অদেখার। আমরা যতটুকু দেখাতে চাই, ঠিক ততটুকুই মানুষদেরকে দেখাই। টাইম, কমিটমেন্ট মেনটেইন করার।

বিনোদন সারাবেলা: আপনি এবারই প্রথম লাক্স সুপারস্টারের বিচারক হয়েছেন…

সাদিয়া ইসলাম মৌ: আমি এর আগে কখনোই বিচারক হইনি। কারণ এই জিনিসটা নিয়ে আমার সবসময় ভয় লেগেছে। আমার কাছে মনে হয়, সবগুলো মেয়েই অনেক আশা ও স্বপ্ন নিয়ে আসে। যারা বাদ পড়ে যায়, একভাবে তাদের দুঃখই দেওয়া হয়, যার কারণে আমি বাদ দেওয়ার পর্বটাকে ভয় পাই। এ কারণে কোনো কম্পিটিশনে আমি বিচারক হই না। এটা আমি খুব অপছন্দ করি। কিন্তু এবার বলতে পারেন, আমার পাশে যারা আছেন, তাদের কারণেও আমি কাজটি করছি। কারণ আমি কাজটি শুরুর আগেই জানতে চেয়েছি, বিচারকদের তালিকায় কারা থাকবে। যখন তাদের নাম বলল, তখন মনে হয়েছে, আমি তাদের সাথে কাজ করতে এনজয় করব। আমার ভালো লাগবে, সে জন্য আমার করা।

বিনোদন সারাবেলা: আপনি যখন বিচারকার্য পরিচালনা করছেন, তখন কোন বিষয়গুলোতে প্রাধান্য দিচ্ছেন?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: আমি না, আমাদের তিনজনকেই কিছু্ ক্রাইটেরিয়া দেওয়া হয়েছে, বলা হয়েছে সে বিষয়গুলো দেখার। সেদিকেই আমাদেরকে নজর দিতে হচ্ছে। এটা ছাড়া আমরা আলাদা কিছু করতে পারছি না। ওদের কথা বলা, হাঁটা, চলা, আমরা একটি প্রশ্ন করলে সেটিতে তারা কীভাবে উত্তর দিলো, এসব দিকগুলোই আমাদেরকে দেখতে বলা হচ্ছে। তাদের যে ভেতরকার চিন্তাধারা, সে বিষয়গুলোতেও নজর দিতে হচ্ছে। একটা গাইডলাইন আছে।

বিনোদন সারাবেলা: এতে করে কি আপনার স্বাধীনভাবে বিচার করার জায়গায় বাধা তৈরি হয়েছে?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: না, আমার দিক থেকে তেমন কিছু মনে হচ্ছে না। বেশ ভালোই হচ্ছে। কারণ ওই ধরনের কোনো হ্যাম্পার ওরা আমাদেরকে করেনি। বরং আমরা যতটুকু করব, সেটা সবার জন্যই ভালো। আমাদেরকে কিছু দিকের প্রতি খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে। গাইডলাইন পাওয়াতে বরং আমাদের কাজের সুবিধা হয়েছে। আমি কোনো নেগেটিভ কিছু দেখতে পাচ্ছি না।

বিনোদন সারাবেলা: লাক্স সুপার স্টারে এখন পর্যন্ত টিকে থাকা মেয়েদের উদ্দেশে কী বলবেন?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: সবার জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা। আমি জানি শেষ পর্যন্ত তিনজন মেয়েই থাকবে। আর এবারের কম্পিটিশনে অনেক ভালো ভালো ছেলে-মেয়েরা আসছে। তদের মধ্যে চেষ্টাটা দেখা গিয়েছে। তাদের জন্য অনেক শুভ কামনা রইল। এ কম্পিটিশনে অনেকেই আসে, কিন্তু টিকে থাকে কম। কারণ হয়তো তাদের ডেডিকেশন থাকে না, ইচ্ছেটা জোরালো হয় না। তবে অনেকেরই এর বাইরে অন্যান্য বিষয়ে মনোযোগ থাকতে পারে। এখান থেকে বাদ পরে যাওয়ার পর সে বিষয়গুলোতে মনোযোগ দেয়। সেটার ওপর ওয়ার্ক আউট করে, এটাই চাইব।

বিনোদন সারাবেলা: এবারের আয়োজনের উল্লেখযোগ্য দিকটি কী?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: আমি আসলে সেটি বিচার করতে পারব না, কারণ আমি এর আগে কখনো এ প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে এ আসনটিতে বসিনি। হয়তো আগের অভিজ্ঞতা থাকলে আমি কম্পেয়ার করতে পারতাম। আমি আবার আগের প্রতিযোগিতাগুলো খুব যে দেখেছি, তা-ও কিন্তু নয়। তবে আমি নতুন নতুন কিছু বিষয়ের কথা শুনেছি, যা আগে হয়তো হয়নি। আমি আসলে ভালোই বলব। ওদেরকে দিয়ে নাচ, অভিনয় করানো হচ্ছে। এ ছাড়াও আরও কিছু বিষয় রয়েছে, যা পারফর্ম করে দেখাতে বলা হচ্ছে, যা এর আগে কখনো ওরা করেনি।

বিনোদন সারাবেলা: ‘দেখিয়ে দাও অদেখা তোমায়’ থিম সম্পর্কে আপনার মন্তব্য কী?

সাদিয়া ইসলাম মৌ: এখানে বলা হচ্ছে, ভেতরকার সৌন্দর্যের কথা। তার পরিচ্ছন্নতা, ব্যবহার, আচার-আচারণ, তার ডেডিকেশন-এগুলোই বোঝাতে চাচ্ছে। আমরাও সেগুলোই বুঝতে চাচ্ছি এবং সেটার ওপরই কাজ হচ্ছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.