নির্বাচনী সমাবেশে ড. নীনা ‘আমি অভিবাসীদের অধিকার আদায়ের জন্যে লড়ছি’

0 70

পেনসিলভেনিয়া স্টেটের লে. গভর্ণর পদে ডেমক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী ড. নীনা আহমেদ সকলের কাছে ভোট প্রার্থনা করে বলেছেন, ‘আমি লড়ছি অভিবাসী সমাজের অধিকার আর মর্যাদা সুরক্ষার জন্যে। গত ২৫ বছর ধরেই আমি সর্বসাধারণের কল্যাণে কাজ করছি। সামনের দিনেও একইভাবে আপনাদের পাশে নিয়ে আরো জোরালোভাবে কাজ করতে চাই।’ সামনের মাসেই দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ের এ নির্বাচন। সেখানে সকলকে ভোট প্রদান করতে হবে। এই অঙ্গরাজ্যের ইমেজ সমুন্নত রাখার মধ্য দিয়েই ট্রাম্প প্রশাসনের অ-আমেরিকান কর্মকান্ড প্রতিরোধ করতে হবে-উল্লেখ করেন বাংলাদেশি-আমেরিকান ড. নীনা।

৭ এপ্রিল শনিবার রাতে ফিলাডেলফিয়া সিটি সংলগ্ন “মন্টগুমারী কাউন্টি  বাংলাদেশি আমেরিকান কম্যুনিটি’’র উদ্যোগে লেন্সডেল মেননিয়েট চার্চে ড. নীনার নির্বাচনী তহবিল গঠনের এ সমাবেশের সঞ্চালনায় ছিলেন কমুনিটি ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ রাজ্জাক।

কেন প্রথম প্রজন্মের এই বাংলাদেশিকে বিপুল বিজয় দেয়া জরুরী সে আলোকে বিস্তারিত বলেন ড. নীনার নির্বাচনী প্রচারণার সমন্বয়কারি ড. ইবরুল চৌধুরী এবং ডা. ফাতেমা আহমেদ। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় আরো অংশ নেন ডা. জিয়াউদ্দিন এবং সাংবাদিক মফিজুল ইসলাম।

ড. ইবরুল তার বক্তব্য  বলেন, ‘নীনা একজন বাংলাদেশি, তাকে আপনাদের মাঝে বিশেষ করে এই অঞ্চলে নতুন করে পরিচয় করার কিছুই নেই। তিনি আমাদের কমুনিটির অতি আপনজন । আপনাদেরকে সাথে নিয়ে পেনসিলভেনিয়ার লেফটেন্যান্ট গর্ভনর পদে তাকে জয়যুক্ত করাতে চাই।’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত লেন্সডেল সিটির কাউন্সিলম্যান লিউন শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

ড. নীনা বলেন,  ‘আমি সবসময় আপনাদের পাশে আগে যেমন ছিলাম ভবিষ্যতেও থাকবো । আমি পেনসিলভেনিয়ার লেফটেন্যান্ট গর্ভনর পদে লড়ছি সেটা শুধু আমার নিজের জন্য নয়, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য, আমাদের সবার সঠিক অধিকার আদায়ের জন্য।’

তিনি বলেন, ‘আমি একজন বাংলাদেশি, আমি আপনাদেরই সন্তান। অন্যায়ের কাছে আমি কখনও মাথা নত করিনি। আপনারাই আমার সাহস। এই পদে  থেকেই আমি কম্যুনিটির জন্য লড়তে চাই।’ ড. নীনা বলেন, ‘আমাকে দেখেই আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিখবে, এই দেশের মূলধারার রাজনীতির সাথে নিজেদের জড়াবে।’

নীনা উল্লেখ করেন, ‘বিগত সময়ে আমি সরকারের নানা পদে ছিলাম। গত ২৫ বছর ধরেই আমি পেনসিলভেনিয়ার  বিভিন্ন প্রশাসনের  অন্যায়ের প্রতিবাদ এবং জনগণের ন্যায্য দাবি ও অধিকার আদায়ের জন্য লড়ছি। এখন কমুনিটির বিভিন্ন  অসহায় নারীদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, স্বাস্থ্যসেবা, উচ্চ শিক্ষার ব্যায় সংকোচন, স্কুলে শিক্ষার্থিদের নিরাপদ অবস্থান , এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সঠিক দিক-নির্দেশনা দেওয়ার জন্য পেনসিলভেনিয়ার লেফটেন্যান্ট গর্ভনর পদে লড়ছি।’

‘আপনারা যদি ঠিক এইভাবেই আমাকে সাহস দেন এবং পাশে থাকেন,  তাহলে এই জয় আমাদেরই হবে ইনশাআল্লাহ’-বলেন ড. নীনা।

এদিকে, ড. নীনার নির্বাচনী তহবিল সুসংহত করতে আগামী ২ মে নিউইয়র্ক সিটির ব্রঙ্কসে আরেকটি সমাবেশ হবে। এ উপলক্ষে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। হোস্ট সংগঠন ‘বাংলাদেশী আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিল’র প্রেসিডেন্ট আইনজীবী এন মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক নজরুল হক, ডাইরেক্টর আবদুল গাফফার চৌধুরী খসরু, ডাইরেক্টর মনজুর চৌধুরী জগলু, অধ্যাপক শেখ আল-মামুন, আবদুর রহিম বাদশা, শাখাওয়াত আলী এক যুক্ত বিবৃতিতে এ আয়োজনে সকলকে সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.