আসিফকে স্ত্রীর সঙ্গে সমঝোতার পরামর্শ আদালতের

0 139

মডেল ও অভিনেতা কাজী আসিফ রহমান ও তাঁর স্ত্রী শামীমার মধ্যকার ঝামেলা দূর করতে সমঝোতার পরামর্শ দিয়েছে আদালত। সোমবার আবেদনের প্রেক্ষিতে স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় আসিফের জামিন আগামী ২০ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

অন্তবর্তীকালীন জামিনের মেয়াদ শেষ হতে যাওয়ায় সোমবার আসিফ ট্রাইব্যুনালে আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আজ সোমবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল- ৬ এর বিচারক শহীদুল ইসলাম জামিন বাড়িয়ে এ পরামর্শ দেন।

গত ২২ এপ্রিল রাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আসিফকে গ্রেপ্তার করা হয়য়। পরদিন ট্রাইব্যুনাল তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর ২৫ এপ্রিল স্ত্রী মীমা শাহ অরণির (শামীমা) সাথে আপোষের শর্তে আসিফকে অন্তবর্তীকালীন জামিন প্রদান করেন ট্রাইব্যুনাল ।

আসিফের পক্ষে তাঁর আইনজীবী ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি ও মো. মহিদুল ইসলাম জামিন শুনানি করেন। আইনজীবী জামিন শুনানিতে বলেন আসামি জামিনের কোনো শর্ত ভঙ্গ করেননি। আর আপোস-মীমাংসার কথাবার্তা চলছে। এ অবস্থায় আমরা তার জামিনের প্রার্থনা করেছি। অন্যদিকে বাদী পক্ষের আইনজীবী সাইফুল ইসলামসহ কয়েকজন আইনজীবী জামিনের বিরোধিতা করেন।

গত ২ এপ্রিল ট্রাইব্যুনাল ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ২০ মে পর্যন্ত আসিফের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৭ আগস্ট কানাডা প্রবাসী শামীমা আক্তার অরণির সঙ্গে বিয়ে হয় কাজী আসিফের। বিয়ের সময় মেয়ের পরিবার ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা মূল্যের আসবাবপত্র দেয় আসিফকে। এরপর বাদী আসামিকে গাড়ি কেনার জন্য ১৮ লাখ টাকা দেন তারা। গত ২ এপ্রিল বাদী আসামিকে জিজ্ঞেস করে গাড়ি না কিনে সে টাকা কী করেছে। এর পর আসিফ আরও ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে তাকে মারধর করেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.