চাঁদনীকে অনেক কুপ্রস্তাবও দেওয়া হয়েছিল!

0 72

চাঁদনীকে অনেক – শাহরিয়ার নাজিম জয়ের মুখোমুখি হয়েছেন অভিনেত্রী চাঁদনী। একুশে টেলিভিশনের ‘উইথ নাজিম জয়’ এ অতিথি হয়ে এসেছিলেন চাঁদনী। ৩০ মে বুধবার রাত ১০ টায় অনুষ্ঠানটি প্রচার শুরু হয়। আলোচনার প্রসঙ্গ ছিল অভিনেত্রী চাঁদনীর সঙ্গে বাপ্পা মজুমদারের বিবাহ বিচ্ছেদ ও বাপ্পা মজুমদারের সঙ্গে কণ্ঠশিল্পী অভিনেত্রী তানিয়া হোসেনের বিয়ে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিনোদন সাংবাদিক এমএস রানা।

এ সময় তানিয়ার ক্যারিয়ার ও ক্যারেক্টার নিয়ে প্রশ্ন করা হয় রানার কাছে। কিন্তু তিনি এ প্রসঙ্গে তেমন কোনো বক্তব্য রাখেননি।

চাঁদনীর বক্তব্য থেকে জানা যায় অনেক কিছু। বাপ্পা-চাঁদনীর দাম্পত্য চলাকালে অনেক কানাঘুষা চলছিল। চাঁদনীকে অনেক কুপ্রস্তাবও দেওয়া হয়েছিল বলে জানান শাহরিয়ার নাজিম জয়।

চাঁদনীর বক্তব্য থেকে জানা যায়, বাপ্পা-চাঁদনীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ ছিল। বাপ্পা চাঁদনীর দাম্পত্য জীবনের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে যেত। চাঁদনী নাকি নেশাখর, তার বাচ্চা হয় না, এসব কথা বলে বেড়াতো আশেপাশের লোকজন। চাঁদনীর প্রশ্ন হচ্ছে, এগুলো কে ছড়াত? এ জন্য অবশ্য চাঁদনী খুব জোরালোভাবে বাপ্পাকে দায়ী করেননি। শুধু বলেছেন, ‘স্বামী স্ত্রীর কথা যদি অন্য কেউ জানে, তাহলে তেমন স্বামী চাই না।’

বাপ্পা ও তানিয়ার বিয়ের প্রসঙ্গে চাঁদনী বলেন, ‘দুজন দুঃখী মানুষ এক সাথে হলো। আমি বলি ওরা সুখে থাক।’

চাঁদনী আরও বলেন, ‘বাপ্পা আমাকে কখনোই অভিনয় করতে নিষেধ করেনি। কিন্তু আমি ক্যারিয়ারে কী মন দেব, আমার তো সংসারই ঠিক মতো হচ্ছিল না।’

তাহলে তানিয়াই কী চাঁদনী বাপ্পার সংসার ভাঙার পেছনে পরোক্ষভাবে দায়ী? এ মন প্রসঙ্গ উঠলে চাঁদনী বলেন, ‘আমাকে খারাপ করে কোন মেয়ে বা ছেলে কীভাবে আগাবে।’

অনুষ্ঠান থেকে আরও জানা যায়, এ মাস পর্যন্ত চাঁদনীর ভরণপোষণ বাপ্পাই দিয়ে আসছিলেন। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে এসে শাহরিয়ার নাজিম জয়ের অনুরোধে বাপ্পা মজুমদারের একটি গানের চার লাইন গেয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন তারা। চাঁদনী বলেন, ‘আমি সব সময়ই বাপ্পার গানের ভক্ত।’

এর পর তিনি বাপ্পা মজুমদারের ‘কখনো ইচ্ছে হয় সারাটি বেলা’ গানটি গেয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন।

সুত্র: ভোরের পাতা

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.