যৌনতায় ঠাসা ৬ টি বাংলা সিনেমা যা পরিবারের সাথে দেখতে পারবেন না!

0 300

বিনোদন ডেস্ক : ভারতের সেন্সর বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান পহলাজ নিহালানির কথা বাদ দিন। ইদানিং বলিউডে অনেক মুভিই রয়েছে যা সাহসী কিছু অন্তরঙ্গ দৃশ্যের জন্য সোসাল সাইটে সাড়া ফেলে দিয়েছে।

ভারতের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে মীরা নায়ার পরিচালিত “কামসূত্র: এ টেল অফ লাভ” মুভিটিকে এদিক থেকে একটি মাইলস্টোন বলাই যেতে পারে। যদিও মুভিটি ভারতে ব্যান করা হয়েছে। তবু “মার্ডার”, “হেট স্টোরি” ইত্যাদি এরোটিক থ্রিলার ভারতের জনমানসে ছাপ ফেলে গেছে।

সিনেমাতে সাহসী ও অন্তরঙ্গ দৃশ্য প্রদর্শনে বলিউড শুধু নয় বাংলা সিনেমাও অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে। এমন কতগুলো বাংলা সিনেমা যেখানে প্রেম, যৌনতা প্রদর্শনে সমসাময়িক অনেক বলিউড ছবিকে ছাপিয়ে গেছে। এই সিনেমাগুলি আপনি এখনও হয়ত দেখেননি।

১) “টেক-ওয়ান” (২০১৪)
সিনেমাটি একটি নারীর জীবনের উপর আধারিত যেখানে তার কিছু ব্যক্তিগত আপত্তিজনক দৃশ্য ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যায়। এর জন্য তাকে অনেক অপমান ও যন্ত্রণাদায়ক পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। সিনেমাটির কিছু অন্তরঙ্গ দৃশ্য আপনাকে হতবাক করতে পারে।

২) কসমিক সেক্স (২০১৪)
এই মুভিটাকে বাংলা সিনেমার ইতিহাসে সবচেয়ে বোল্ড মুভি বলা হয়। কিছু নগ্ন ও অন্তরঙ্গ দৃশ্য দর্শককে বাক্যহীন করে দেয়।

৩) ফ্যামিলি এলব্যাম (২০১৫)
লেসবিয়ানিজমের উপর আধারিত মুভিটি কিছু বাস্তব দাবি আর হিউমারের মেলবন্ধন তুলে ধরেছে।

৪) ছত্রাক (২০১১)
অভিনেত্রী পাওলি দাম অভিনীত ‘ছত্রাক’ ছবি একটি বহু বিতর্কিত ছবি। অত্যন্ত সাহসী নগ্ন ও অন্তরঙ্গ দৃশ্যের জন্য প্রশংসিত হয়েছিলেন পাওলী দাম। ছবিটি ৬৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছিল।

৫) রাজকাহিনী ( ২০১৫)
পরিচালক সৃজিত মুখার্জির “রাজকাহিনী” ভারত-পাকিস্থান দেশভাগের প্রেক্ষাপটে রচিত একটি অনবদ্য সিনেমা। এই ছবির হিন্দি রিমেক “বেগম জান”। ছবিটিতে প্রদর্শিত সাহসী দৃশ্যে পরিচালকের মুন্সিয়ানা দেখতে পাওয়া যায়।

৬) “বিষ” (২০০৯)
ছবিটিতে তিনজন কলেজ স্টুডেন্টের কথা বলা হয়েছে। সমকামিতা ও এইডস্ ইত্যাদি বিষয়গুলির উপর থিম করে ছবিটি প্রদর্শিত হয়েছে।

এরকমই কিছু বাংলা ছবি যা কিনা যৌনতা ও অন্তরঙ্গ বিষয়কে কেন্দ্র করে তৈরা করা হয়েছে। দেরি কিসের। চাইলে সার্চ করে দেখতে পারেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.