‘শিল্পীরা যুদ্ধ ছাড়াই রাজ্য জয় করে’

0 49

ঢাকাই চলচ্চিত্রের নাম্বার ওয়ান খ্যাত নায়ক শাকিব খান। চলচ্চিত্রের এই খারাপ অবস্থায়ও তার ছবি মানেই হল ভর্তি দর্শক। আসন্ন ঈদে শাকিব খান অভিনীত ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিটি মুক্তির প্রস্তুতি চলছে। সম্প্রতি এফডিসিতে ছবিটির শুটিং শেষ হয়েছে। শুটিংয়ের ফাঁকে বিডি২৪লাইভের প্রতিনিধির সাথে কথা হলো- সুপারস্টার শাকিব খানের। জানালেন চলচ্চিত্রের নানা সংকটের কথা।

আলাপচারিতার শুরুতেই উঠে আসে চলচ্চিত্র প্রযোজকদের কথা। শাকিব খান বলেন, ‘এখন আর কেউ সিনেমায় লগ্নি করতে আসে না। সবাই ভয় পায়। একসময় প্রযোজকের অভাব ছিল না। প্রতিযোগিতা করে সিনেমা নির্মাণ করতেন তারা। আর এখন কেউ একবার প্রযোজনা করলে দ্বিতীয়বারের মতো করতে চায় না।’

সম্প্রতি বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছে কলকাতার ছবি ‘ভাইজান এলো রে’। ছবিটি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত হয়ে শাকিব খান বলেন, ‘কলকাতায় ছবিটি মুক্তির পর যেমন সারা পেয়েছিল ঠিক তেমন বাংলাদেশেও পেলো। আসলে ভালো ছবি হলে দর্শক হলে যেতে বাধ্য। আমি আমার ভক্তদের ধন্যবাদ জানাতে চাই যাদের জন্য আজও আমি এতো কিছুর পর ঠিক আছি।’

আসলে শিল্পীরা যুদ্ধ ছাড়াই রাজ্য জয় করে উল্লেখ্য করে চলচ্চিত্রের কিং খান বলেন, ‘বাংলাদেশে এমন আমি সবার ভালোবাসা পেয়েছি। ঠিক তেমনি দেখছি কলকাতার মানুষরাও আমাকে আপন করে নিচ্ছে। সেটা বোঝা যায় ছবি মুক্তির পর ও বিভিন্ন প্রোগ্রামে। আমার কাছে এটা অনেকটা যুদ্ধ ছাড়া রাজ্য জয় করার মতো।’

ইদানিং দেখা যাচ্ছে মূলধারার চলচ্চিত্র যারা নির্মাণ করেন তাদের থেকে টেলিভিশন নির্মাণ থেকে চলচ্চিত্রে আসছেন বেশ সফল হচ্ছেন। এর কারণ কি বলে আপনি মনে করেন এমন প্রশ্নের জবাবে শাকিব খান বলেন, ‘হুম এটা ঠিক। যারা টেলিভিশন নির্মাণ থেকে চলচ্চিত্রে আসছেন তারা বেশ ভালো করছেন। এর কারণ বলে আমার মনে হয় তারা টেকনোলজির সঙ্গে যুগের মেলবন্ধন ঘটাতে পারছেন। ‘আয়নাবাজি’ সুপারহিট, ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সুপারহিট হয়েছে সেগুলোর নির্মাণ মান আন্তর্জাতিক লেভেলের ছিল বলেই।’

মৌলিক গল্পের অভাবে ভুগছে ইন্ডাস্ট্রি উল্লেখ করে তিনি, ‘অনেকেই ফেসবুকসহ নানা মাধ্যমে সমালোচনা করেন নতুন শাকিবও আগের মতো নকল ছবি করে। প্রথমত, ওগুলো নকল নয়। রিমেক। রিমেক আগেও হয়েছে। এখনো হচ্ছে। ঢাকাতেও হতো, কলকাতাতেও হতো। একটা সময় রিমেক ছবি করাতে সেরা ছিলাম আমরা। বলিউডের মূল ছবির থেকেও বেশি ভালো ছিলো আমাদের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবিগুলো। কিন্তু এখন আর পারছি না। কেন সেই কারণটা কেউ কি ভাবি? আজকাল কলকাতায় বাণিজ্যিক যেসব ছবি হচ্ছে সেগুলোর প্রায় সবই কোনো না কোনো ছবির রিমেক। আমার ছবিগুলোও তাই। ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ব্যানারে মুক্তি অপেক্ষায় থাকা ‘নেকাব’ ছবিটিও রিমেক। ছবিটি কিন্তু দারুণ বানিয়েছেন পরিচালক। আসলে আমাদের দেশে মৌলিক গল্প নেই। ভালো গল্পকার নেই। একসময় সৈয়দ শামসুল হক, মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান, আমজাদ হোসেন, আহমদ জামান চৌধুরীদের মতো মেধাবী ও গুণী মানুষেরা সিনেমার চিত্রনাট্য লিখেছেন। কিন্তু তাদের কেউ কেউ আজ নেই আমাদের মাঝে, কারও আবার বয়স হয়ে গেছে। চাইলেও লিখতে পারেন না। ছটকু আহমেদ, জাকির হোসেন রাজু ভাইও দারুণ চিত্রনাট্য করেন। কিন্তু তারাও আর আগের মতো করে সময় দিতে পারছেন না। বাধ্য হয়েই রিমেক ছবি করতে হয়। আমাদের ভালো গল্পকার ও চিত্রনাট্যকার প্রয়োজন। হয়তো অনেকে আছেন, ভালো সম্মান ও সম্মানির অভাবে নিজেদের এই লাইনে আনতে চান না। তাদের উৎসাহিত করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, এবার ঈদে শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত নির্মাতা ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিটি মুক্তির অপেক্ষায় আছে। সম্প্রতি ছবিটির শুটিং শেষে ছবির গানের শুটিং করতে সোমবার (৬ আগস্ট) ব্যাংকক গিয়েছেন ছবির পাত্র-পাত্রী শাকিব খান ও বুবলী। ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিতে শাকিব ও বুবলী ছাড়াও অভিনয় করছেন নায়ক সম্রাট, মিশা সওদাগর, বড়দা মিঠু, ডন, শিবা শানু ও অমিত হাসান।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.