ক্যান্সারকে পরাজিত করে যমজ সন্তানের মা লিসা রে

0 47

২০০৯ সালের ২৩ জুন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ইন্দো-কানাডীয় বলিউড অভিনেত্রী লিসা রে। বোনম্যারো ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তিনি। একাধিক অস্ত্রোপচার করেছিলেন। ২০১০ সালে জানিয়েছিলেন, তিনি বিপদমুক্ত। কিন্তু পুরোপুরি ক্যান্সার সারিয়ে উঠতে পারেননি অনেকদিন। দীর্ঘ চিকিৎসার পর তিনি এখন সুস্থ। কাজেও ফিরেছেন লিসা। এবার তিনি হলেন যমজ কন্যা সন্তানের গর্বিত মা।

সারোগেসির মাধ্যমে গত জুনে দুই সন্তানের মা হন লিসা রে। সুফি ও সোলেইল নামে এই দুই আদুরে বাচ্চার ছবি আজ সকালে পোস্ট করেছেন তিনি। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে প্রকাশ করা ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, দুটি বাচ্চাকে কোঁলে নিয়ে বসে আছেন লিসা। ছবিটির ক্যাপশনে লিসা লিখেছেন, ‘পৃথিবী সরে দাঁড়াও। আসছে সুফি ও সোলেইল। আমার মেয়েরা জানে নারীদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে। সবাইকে ধন্যবাদ তাদের ভালোবাসা ও শুভ কামনার জন্য।’

লিসা জানিয়েছেন, প্রচুর ওষুধ খাওয়ায় সন্তান জন্ম দিতে অক্ষম তিনি। তাই অনেক ভাবনাচিন্তার পর তিনি ও তার স্বামী সারোগেসির সিদ্ধান্ত নেন। ভারতে বাণিজ্যিক কারণে সারোগেসি নিষিদ্ধ হওয়ার মাত্র ১ সপ্তাহ আগে সারোগেট মায়ের সঙ্গে পাকা চুক্তি করেন তারা। এখন ২ মেয়ের জন্মের পর মুম্বাইয়ের বাড়িতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সন্তানদের নিয়ে তারা ফিরতে চান।

তিনি লিখেছেন, ‘আমার স্বামী জ্যাসন এবং আমি আমাদের সারোগেসির অভিজ্ঞতা সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে চাই। ফলে সারোগেসি নিয়ে মানুষের মন থেকে দ্বিধা কেটে যাবে। আরও সরাসরি কথা বলা হবে বিষয়টি নিয়ে। এই পদ্ধতিটি সহজ নয় তবে কিছু অর্জন করা যায়। আমি কখনো ভাবিনি এটি সম্ভব হবে। কিন্তু সুফি ও সোলেইল আমাদের পূর্ণ করে দিয়েছে। মাতৃত্বের স্বাদ পাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে ওরা আমাকে। এই সময়টিতে যারা আমার পাশে ছিলেন তাদের সকলকে ধন্যবাদ।’

লিসা আরও জানিয়েছেন, এখন তার জীবন এক অন্যরকম অনুভূতিতে ভরপুর। এখন মেয়েদের খাওয়ানো, ন্যাপি পাল্টানোর মতো কাজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। এতদিন নিজের যত্ন নেওয়ার, বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটানোর বা ঘুরে বেড়াতেন তিনি। নিজের মতো সময় কাটাতেন। কিন্তু এখন আর সেই সময় নেই। মেয়েদের কবে তিনি নিজের মুম্বাইয়ের বাড়িতে নিয়ে আসবেন, তার দিন গুনছেন। জীবনে অনেক কিছু অপরিকল্পিতভাবেই হয়। আগে থেকে সেসব ঠিক করা থাকে না।

২০১২ সালে জ্যাসন ডেহনির সঙ্গে বিয়ের পর থেকেই সন্তানের কথা তাদের মনে হতে শুরু করে। এরপর জুন মাসে জর্জিয়ার তিবিলিসিতে সারোগেসির মাধ্যমে জন্মান লিসার দুই মেয়ে।

নুসরাত ফতে আলি খানের ‘আফরিন আফরিন’ মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করে প্রথম খ্যাতি পান লিসা। বাঙালি বাবার সন্তান লিসা ২০০৯ সালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তিনি। ১ বছর চিকিৎসার পর সেরে ওঠেন। কিন্তু ২০১২ সালে বিয়ের ঠিক পরেই আবার দেখা দেয় ক্যান্সার। এখন ভালো থাকলেও লিসা জানিয়েছেন, ভয়কে কিছুতেই মনে জায়গা দিতে চান না তিনি। কিন্তু এটা সত্যি, যে ভয় করছে। যদিও তিনি বিশ্বাস করেন, এই অনুভূতি কেটে যাবে।

সূত্র: ডেকান ক্রনিকল

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.