কার সঙ্গে কাজ করে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন? যা বললেন শাবনূর

0 52

১৯৯৩ সালের ১৫ অক্টোবর ‘চাঁদনী রাতে’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক। আজ তাঁর ২৫ বছর পূর্তি হলো। কেমন ছিল এত দিনের পথচলা! ক্যারীয়ারের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে কথা বলেছেন গণমাধ্যমের সঙ্গে। তার চুম্বক অংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল-

অভিনয় জীবনের ২৫ বছর পূর্তি হলো আজ। কেমন লাগছে?

দেখতে দেখতে সময়টা চলে গেল। ভেবেছিলাম অনেক ঘটা করে দিনটি পালন করব। কেক কাটব, অনুষ্ঠান করব, দাওয়াত দেব চলচ্চিত্রের মানুষদের। কিন্তু দুই সপ্তাহ ধরে এমন অসুস্থ যে কিছুই করতে পারলাম না। জ্বরে মাথা উঁচু করার শক্তিও পাচ্ছি না।

প্রথম দিনের শুটিংয়ের কথা কি মনে আছে?

দিনটি ভোলার নয়। একটা ছোট সংলাপ, এরপর গানের দৃশ্য। আগের দিন বসলাম নাচের মেয়েদের সঙ্গে। ওরা তো আমাকে দেখে অবাক। ভাবল—এত ছোট মেয়ে, ক্যামেরার সামনে কী করবে! তা ছাড়া নাচের মুদ্রা তো পারবে না। কত শট যে এনজি (নট গুড) হবে তার ঠিক নেই। কিন্তু পরের দিন শুটিংয়ে আমাকে মেকআপ করা অবস্থায় দেখে অবাক হলো। একজন তো বলেই ফেলল, মেকআপ নিলে তো পুরোই ববিতার মতো লাগে! ক্যামেরা ওপেন হলো। শট রেডি। আমার সংলাপ, নায়ককে বলতে হবে, ‘এই চোর, চোর বেটা!’ এক টেকেই শট ওকে। নাচের মেয়েরা অবাক হলো। এরপর যখন ওদের সঙ্গে নাচতে শুরু করলাম, ওরা হার মানতে বাধ্য হলো।

একাধারে সালমান শাহ, ওমর সানী, মান্না, রিয়াজ, শাকিল খান, ফেরদৌস থেকে শুরু করে শাকিব খানের সঙ্গেও ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন। কার সঙ্গে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছেন?

সবাই আমার সহশিল্পী। আলাদা করে বলার কিছু নেই। তবে সালমান আর আমার জুটিটা ছিল অনবদ্য। পরিচালকরা যেমন আমাদের নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করতেন, তেমনি দর্শকরাও সাদরে গ্রহণ করত আমাদের। সানী ভাইও দারুণ। তাঁর সঙ্গে সেটে খুব দুষ্টুমি করতাম। তা ছাড়া রিয়াজ, শাকিল খান, ফেরদৌস, শাকিব খান—সবাইকে সমান চোখে দেখেছি। প্রত্যেকেরই অভিনয় অসাধারণ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.