ভিসা ছাড়াই যাওয়া যাবে ৪৪ দেশে

0 3

একজন বাংলাদেশি হিসেবে আপনি গর্ব করতেই পারেন। বাংলাদেশের মানুষ এখন ভিসা ছাড়াই যেতে পারেন ৪৪টি দেশে। সূচকে ১০০ থাকলেও এবার উন্নতি হয়ে ১৮ ধাপ ওপরে ওঠেছে। এখন বাংলাদেশের অবস্থান ৮২। অর্থাৎ এই দেশগুলোতে যেতে হলে দেশ থেকে ভিসার জন্য প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয় না। পাওয়া যায় ভিসামুক্ত সুবিধা। শুধু পাসপোর্ট থাকলেই হয়।

শুধু বাংলাদেশের পাসপোর্টের জোরে ভিসা ছাড়াই আপনি ৪৪টি দেশ ভ্রমণ করতে পারবেন।

তবে ৪৪ দেশের মধ্যে ১৮টি দেশে যেতে ভিসার প্রয়োজন হবে না। আর ২৬ দেশে যাওয়া যাবে অন-অ্যারাইভাল ভিসার মাধ্যমে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা দ্য হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স তাদের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানায়। সংস্থাটি সম্প্রতি বিশ্বের ২০০টি দেশের ওপর গবেষণা জরিপ চালিয়ে একটি মূল্যায়ন সূচক তৈরি করেছে।

সংস্থাটি মূল্যায়ন সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পর্কে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। সূচকটিতে বিভিন্ন দেশের পাসপোর্টের মূল্যায়ন তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থানের উন্নয়ন ঘটেছে।

এ বছর অর্থ্যাৎ ২০১৮ সালে এই সূচকে ৫ ধাপ অবনতি হয়ে ১০০তম অবস্থানে নেমে আসে বাংলাদেশ। তবে এবারের এই সূচকে এক লাফে ১৮ ধাপ উন্নতি হয়ে ৮২তম অবস্থানে এসেছে বাংলাদেশ।

দ্য হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্সের তথ্য অনুযায়ী, যেখানে ২০১৭ সালে এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৯৫তম। ওই বছর বাংলাদেশের পাসপোর্টধারীরা বিশ্বের ৩৮টি দেশে ভিসামুক্ত প্রবেশের সুবিধা পেত।

গত ২৬ অক্টোবর বাংলাদেশ সফররত চীনা জননিরাপত্তাবিষয়কমন্ত্রী ও পার্টি কমিটির সম্পাদক ঝাও কেঝি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে এক বৈঠক হয়।

ওই বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানান, বাংলাদেশি নাগরিকদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দিতে চায় চীন। চীন এই সুবিধা চালু করলে পাসপোর্ট সূচকে আরও উন্নতি ঘটবে বাংলাদেশের।

এদিকে, পাসপোর্ট ইনডেক্সের তালিকায় শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে সবার ওপরে যৌথভাবে আছে জার্মানি ও সিঙ্গাপুর। এছাড়া ফ্রান্স, ইতালি ও যুক্তরাষ্ট্রসহ ১১টি দেশ দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। এ তালিকায় যুক্তরাজ্য, কানাডা ও জাপানসহ ৯টি দেশ তৃতীয় অবস্থানে আছে।

শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে বাংলাদেশের নিচে অবস্থান করছে পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইরান ও ইরাক। এছাড়া প্রতিবেশি দেশ ভারত ৬৫তম অবস্থানে আছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.