মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে ফের বিতর্ক!

0 23

মাইকেল জ্যাকসনকে বলা হয় বিশ্বের সবচেয়ে সফল সেলিব্রেটি। পপসাম্রাজ্যের বাদশাহ খ্যাত মাইকেল জ্যাকসন গান, নাচ ও ফ্যাশনে অপ্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন।

মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে এবার বিতর্কের কারণ হল একটি তথ্য চিত্র। দুই পর্বের এই তথ্য চিত্রটি তৈরি করেছেন ড্যান রিড। জ্যাকসনকে নিয়ে তৈরি হওয়া তথ্যচিত্র ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ এই মাসেই প্রথম প্রদর্শনী হওয়ার কথা সানড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবে। কিন্তু ছবিটি বিতর্ক দানা বেঁধেছে। কারণ এই তথ্যচিত্রটিতে দেখানো হয়েছে যে ‘মাইকেল জ্যাকসন শিশুদের যৌন নিপীড়ন করতেন।এই তথ্য চিত্রে তার কাছে যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছেন বলে দাবি করা এমন দুজনের সাক্ষাৎকার রয়েছে। ছবিতে ওই দুই জন পুরুষ দাবি করেছেন, তাদের বয়স যথাক্রমে যখন সাত ও দশ বছর। তখন মাইকেল জ্যাকসন দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে তাদের। বর্তমানে এরা দু’জনেই এখন তিরিশের কোঠায়।

তবে তাঁর বিরুদ্ধে এমন শিশুদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নতুন নয়। ওই ১৩ বছর বয়সী এক কিশোর জ্যাকসনের কাছে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এমন অভিযোগের তদন্তের অংশ হিসেবে ২০০৩ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার পুলিশ একবার ‘নেভারল্যান্ড’ নামে পরিচিত তার খামারবাড়িতে তল্লাশিও চালিয়েছিল। এই খামারবাড়িটির নামেই তথ্যচিত্রটির নামকরণ হয়েছে। তখন এইসব অভিযোগের জন্য মাইকেল জ্যাকসনকে বিচারের মুখোমুখি হতে হয়েছিলো। তবে ২০০৫ সালে তাকে এই অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয় আদালত।

উল্লেখ্য, কিং অফ পপ নামে দুনিয়াজুড়ে পরিচিত লাভ করা এই মার্কিন সংগীত শিল্পীর হঠাৎ মৃত্যুর জন্য দীর্ঘ মেয়াদে পেইন কিলার সেবনকে দায়ী করা হয়। কিন্তু এ নিয়ে বিতর্ক বোধ হয় কোনো দিনই শেষ হবে না। শুরুতে জানানো হয়েছিল তার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ঘটেছে। তখন হুট করেই বোম ফাটায় দ্য সান পত্রিকা। তাদের এক খবরে বলা হয়, ডেমারোল নামের একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যথানাশক ইনজেকশন নেওয়ার কারণেই জ্যাকসনের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। ডেমারোল নেওয়ার পর থেকেই জ্যাকসনের শ্বাস-প্রশ্বাস ধীর হতে শুরু করে। এক পর্যায়ে এসে তা একেবারে বন্ধ হয়ে যায়। 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.